করোনাভাইরাসের আতঙ্কে দেশ এ সুযোগে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যর দাম আঁকাশ ছোয়া।

0
8
করোনাভাইরাসের আতঙ্কে দেশ এ সুযোগে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যর দাম আঁকাশ ছোয়া।

ক্রাইম অনুসন্ধান ডেস্কঃ করোনাভাইরাসের আতঙ্কে যখন সারা দেশ এ সুযোগে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যর দাম আঁকাশ চোয়া। কিনে রাখছে মানুষ। যাঁর বাসায় মাসে ২০ কেজি চাল লাগে,দেখা যাচ্ছে তিনি এখন কিনছেন ৫০ কেজির এক বস্তা। বাজারগুলোয় মানুষের ব্যাপক ভিড়। মূলত,১৮,১৯,২০, মার্চ থেকে শুরু হয়েছে এই পরিস্থিতি। দেশে জখন প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ধরা পড়ে। তবে বাজারে ভিড়টা বেশি দেখা গেছে গতকাল মঙ্গলবার থেকে। আজ একই অবস্থা।ব্যবসায়ীরা বললেন, দাম বেশি বেড়েছে চালের। মানভেদে

প্রতি কেজিতে দুই থেকে চার টাকা। খোলা সয়াবিন, পামতেল, ডাল, ডিম ও আলুর দাম কিছুটা বাড়তি। বিদেশি শিশুখাদ্য ও ডায়াপারের দামও বাড়তি বলে জানান ব্যবসায়ীরা। জীবাণুনাশকের দাম তো আগে থেকেই বেড়ে গেছে।বাজারে মানুষের চাপ যেহেতু বেশি, সেহেতু দর-কষাকষির সুযোগ কম। ফলে আগে যেটুকু ছাড় পাওয়া যেত, সেটাও এখন পাওয়া যাচ্ছে না।অবশ্য ব্যবসায়ীরা বলছেন, এখন যাঁরা বিপুল পরিমাণে কিনে রাখছেন, তাঁদের কয়েক দিন পরই আফসোস করতে হতে পারে। পণ্যের ঘাটতি নেই। তাই কয়েক দিন পর চাপ কমে

গেলে দাম কমে যেতে পারে। আর এখন যাঁরা বেশি কিনছেন, তাঁরা এক-দেড় মাসে আর বাজারে আসবেন না। ফলে বাজারে চাহিদা কমবেই।সারা দেশে বাজারের মুদি দোকানিতে কয়েক দিন ধরে মানুষের ব্যাপক ভিড়। যার লাগবে এক বস্তা,সে কিনছে তিন বস্তা। তাই এ সুযোগ আর কি ছারা যায়। জার থেকে যা নেওয়া যায় চালের দাম দুই থেকে চার টাকা বেড়েছে। মসুর ডাল তিন-চার টাকা বাড়তি। পেঁয়াজ-রসুনের দাম ছিল ৩৫,থেকে ৪০। এখন পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৬০,৭০, টাকা আর রসুন ছিল ৬৫,৭০,এখন ১০০,থেকে ১২০ টাকা দরে বিক্রি

করছেন ।আলু দেশি ছিল ২০ এখন ৩০ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১২০ টাকা এখন ১৩০ ফার্মের ডিম ছিল ৮৫,৯০ টাকা এখন ১০০, ডজন দরে বিক্রি করতে দেখা যায়। ডিম বিক্রেতা বলেন, তিন দিন আগে ডিমের ডজন ৮৫,৯০ টাকা ছিল।সমস্যা হলো, আতঙ্কের কেনাকাটায় দোকানিরা ক্রেতাদের কাছ থেকে যেকোনো দাম চাইতে পারছেন। এতে একেক জায়গায় পণ্য একেক দামে বিক্রি হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা পণ্যের দাম বারিয়েছে বলে মনে করেন সাধারন মানুষেরা।আর কাঁচা বাজারের দামত একিই সমস্যা

শত্য প্রকাশে ক্রাইম অনুসন্ধান। আপনার আসে পাশে ঘটে যাওয়া সব কিছু সন্ধান করে আমাদের মেইলে পাটিয়ে দিন ভিডিও সহ conews27@gmail.com প্রকাশক হাসান আলী তালুকদার

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here