তাহিরপুরে শাহ আরেফিন (রহঃ) ওরস ও বারুণী মেলায় দোকানপাট ও কাফেলা নিষিদ্ধ

0
22
তাহিরপুরে শাহ আরেফিন (রহঃ) ওরস ও বারুণী মেলায় দোকানপাট ও কাফেলা নিষিদ্ধ

কামাল হোসেন তাহিরপুর সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় হযরত শাহ আরেফিন(রহঃ) এর ওরস উদযাপন ও সনাতন ধর্মাবলম্বী পণতীর্থ স্নান উপলক্ষে বারুণী মেলাতে সব রকমের দোকা পাট ও ভক্তদের কাফেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জানা যায়, আগামী ২১ মার্চ থেকে ২৩ মার্চ পযর্ন্ত শুরু হতে যাচ্ছে সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলা সীমান্তের শাহিদাবাদ এলাকায় ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম সফর সঙ্গী শাহ আরেফিন (রহঃ) এর আস্তানায় শতবর্ষী ওরস ও সনাতন ধর্মাবলম্বী (হিন্দুদের) অদ্বৈত মহা প্রভুর নবগ্রাম রাজারগাঁও দক্ষিণে যাদুকাটা নদীতে পণতীর্থ। ওই দুই ধর্মের দুই

উৎসবকে কেন্দ্রকরে দেশ বিদেশ থেকে লাখ লাখ ভক্তবৃন্দরা যুগযুগ ধরেই শাহ আরেফিন(রহঃ) এর আস্তানা স্থল ও পণতীর্থ ধামে সমাগম ঘটে। এ উপলক্ষে গত ১০ মার্চ মঙ্গলবার আরেফিন(রহঃ) আস্তানায় আইন শৃঙ্খলা সভা অনুষ্টিত হয়েছে। সভায় ওরশ ও বারুণী মেলাতে দোকানপাট, কাফেলা নিষিদ্ধের পাশাপাশি লোকজনের বড় ধরনের সমাগমকে নিরুৎসাহিত করার আলোচনা হয়েছে। উরশ উদযাপন কমিটির সভাপতি তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী’র সভাপতিত্বে

অনুষ্টিত সভায় সাম্প্রতিককালে করোনা ভাইরাসকে অগ্রাধিকার দিয়ে ব্যাপক আলোচনা করা হয় এবং ওরস স্থলে যানজটও লোক সমাগম কমাতে এবং সর্বোচ্চ সতর্কতা রক্ষায় ”উৎসবের চেয়ে মানুষের জীবন বড়” বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে উরশ স্থলে সকল প্রকার কাফেলা, গানবাজনা, দোকানপাট নিষিদ্ধ ঘোষনা সহ লোক সমাগম এড়িয়ে চলার সবাইকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সভায় ৩ দিন ব্যাপী উরশ উদযাপনে আগত লোক জন তাদের মনস্কামনা পূরণে দান বাক্সে দান করা ও শিরণী

আদায় করতে পারবেন বলে সিদ্বান্ত নেয়া হয়। আগত পূণ্যার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তা প্রদানে প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইন শৃংখলা বাহিনী সহ কমিটির নিয়োগ কৃত স্বেচ্ছাসেবক গন ৩ দিন ব্যাপী দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া বিশুদ্ধ পানীয়জল ,পয়োনিষ্কাশনের ব্যবস্থা, মেডিকেল টিম, সীমান্ত অনুপ্রবেশ রোধে সীমান্ত এলাকায় বাঁশের বেড়া সহ অন্যান্য সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহন করার সিদ্বান্ত নেয়া হয়েছে। উপস্থিত ছিলেন পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে সিনিয়র সার্কেল এসপি বাবুল আখতার, তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন খন্দকার লিটন, উদযাপন

কমিটির সহ-সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, তসকির আহমেদ, বাদাঘাট সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ জুনাব আলী, আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাইয়ুম, আওয়ামী লীগ নেতা সুজাত মিয়া, সেলিম হায়দার ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও উদযাপন কমিটির সকল সদস্যগন। যোগাযোগ করা হলে সিলেট ভয়েসকে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জি বলেন, যেহেতু ওরশ ও স্নান দুটোই ধর্মীয় উৎসব এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের এ স্নান

অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সুতরাং এসব ধর্মীয় অনুষ্ঠান তো বন্ধ করার সুযোগ নেই। তবে সম্প্রতি সারা বিশ্বের ন্যায় দেশেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আশংকায় এসব অনুষ্ঠানে বড় সমাগম যাতে না হয়, এ দিকটি সভায় আলোচনা করা হয়েছে। ওরশ ও বারুণী মেলায় দোকানপাট, কাফেলা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়ছে। তাছাড়া ওরশের আনুষ্ঠানিকতা কতদিন রাখা যায় এ বিষয়ে আগামি রবিবার সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন সিদ্ধান্ত জানাবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here