বাঘাইছড়িতে সন্দেহের জেরে নববধূকে হত্যা- আত্ত্বহত্যা বলে ধামাচাপার চেষ্টার অভিযোগ

0
7
বাঘাইছড়িতে সন্দেহের জেরে নববধূকে হত্যা- আত্ত্বহত্যা বলে ধামাচাপার চেষ্টার অভিযোগ

জগৎ দাশ,বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি: পার্বত্য খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলার কবাখালী ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড কবাখালী গ্রামের বাসিন্দা চানঁ মিয়ার মেয়ে শাবনুর বেগম (১৯)কে গত আট-নয় মাস আগে ২০১৯ সালে বিয়ে দেওয়া হয় রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার রুপকারী ইউনিয়নের রুপকারী মুসলিম ব্লক এলাকার বাসিন্দা মৃত শফিকুল ইসলাম(সল্লা)র ছেলে ৬ ছাকা গাড়ির দৈনিক শ্রমিক মাসুদ আলম মানিকের( ২৮) সাথে। কনের চাচা,আবুল বাশার (মিন্টু) মুটফোনে বলেন, বিয়ের পর থেকে কনে শাবনূরের কোন অভিযোগ অনটন ছিলনা বেশ ভাল কাটচ্ছিল তাদের সাংসারিক জীবন।গত কয়েকদিন আগে ছেলে পক্ষ থেকে ফোন করে

আমাদেরকে বাঘাইছড়ির রুপকারী ইউপিতে ছেলের বাড়ি যেতে বলে।আমরা সেখানে গিয়ে যানতে পারি ভাতিজি শাবনুর সাগর নামে অজ্ঞাত জৈনক ব্যাক্তির সাথে ফোনে প্রেম করার গল্প শুনায় আমাদের।ফোন রেকডিং শুনার পর মেয়ে শাবনূরকে ঘটনার বিবরন দিতে বলা হইলে আসল সত্য বেড়িয়ে আসে। ভাতিজি শাবনূর নয় মূলত প্রেম বিনিময় চলছিল শাবনূরের ননদের সাথে জনৈক ব্যাক্তি সাগরের।প্রবাশে থাকেন ননদীনির স্বামী মুলত ননদিনীর অনুরোধে ভাবি শাবনূর অজ্ঞাত ব্যক্তি সাগরের সাথে ফোনে কথা বলেন ননদ সেজে।ননদীনীর অনুরোধ ছিল প্রেমিক সাগর তাকে সত্যি ভালোবাসে কিনা কথা বলে যানার ও বুঝার চেষ্টা

করতে ভলা হয় ভাবিকে। ঘটনার সত্যতা প্রকাশ পেলে ছেলের মা ভুল স্বীকার করে ছেলে বৌকে মিলমিশ করে দেওয়া হয়।শাবনূরের চাচা আবুল বাশার আরো বলেন, বুধবার (২৫মার্চ) সন্ধ্যায় বাঘাইছড়ি ছেলের বাড়ির প্রতিবেশি মাহেন্দ্র গাড়ি চালক মজিবর থেকে ফোন খবর পায় ভাতিজি শাবনূর আত্ত্বহত্যা করেছে গলাঁয় ফাঁস দিয়ে। ফোন পেয়ে শাবনূরের বাড়ির লোকজন দ্রুত শাবনূরের বাড়ি বাঘাইছড়িতে আসেন।চাচা আবুল বাশারের অভিযোগ, ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ভাতিজি শাবনূরকে দেখতে পায় গলাঁয় দঁড়ি ঝুলানো থাকলে ও পা মাটির সাথে লাগানো রয়েছে আত্ত্বহত্যার কোন নমূনা নেই লাশের। ঝুলান্ত লাশটি ছেলে পক্ষের সাজানো বলে দেখে অনুমান

করার মত বলে যানান শাবনূরের চাচা সাবেক ইউপি মেম্বার আবুল বাশার সন্দেহ প্রকাশ করেন।তিনি ঘটনার অভিযোগ নিয়ে মৃত শাবনূরের বাবা চানঁ মিয়াকে বাঘাইছড়ি থানায় উপস্থিত হয়ে লিখিত অভিযোগ করা হচ্ছে বলে এই প্রতিবেদককে যানান।তিনি আরো বলেন,মিথ্যা ঘটনা মিলমিশ হওয়ার কয়দিন যেতে না যেতে এমন কি হয়েছে তার বোধগম্য নয় বলে যানান।ঘটনার সত্যতা জানতে ফোন করা হলে বাঘাইছড়ি থানার অফির্সাস ইনচার্জ এমএ মন্জুর বলেন,ভিক টিম থানায় হাজির হয়ে লিখিত অভিযোগ দিচ্ছেন তদন্ত ও পোস মর্ডান রিপোটে যানা যাবে সত্যি কি আত্ত্বহত্যা না হত্যা করা হয়েছে নববধূ শাবনূরকে।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here