বেগমগঞ্জে প্রেম গঠিত কারনেকলেজ ছাত্রকে মোবাইলে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা,গ্রেফতার একজন

0
4
বেগমগঞ্জে প্রেম গঠিত কারনেকলেজ ছাত্রকে মোবাইলে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা,গ্রেফতার একজন

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানী ইউনিয়নের জাহানারাবাদ গ্রামে প্রেম ঘঠিত কারনে মোবাইলে ডেকে নিয়ে আটক কর রেখে দাবীকৃত মুক্তিপনের ৫০ হাজার টাকা না পেয়ে জসিম উদ্ধিন (২২) নামের এক কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে জড়িত থাকা সন্দেহে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ রেশমী আক্তার নামে এক নারীকে গ্রেফতার করেছে। নিহত জসিম উদ্দিন পাশ্ববর্তি লক্ষ্মীপুর সদরের চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের পশ্চিম লতিফপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে এবং কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র। জসিম হত্যার ঘটনায় সোমবার বিকেলে বেগমগঞ্জ থানায় জসিমের পিতা আবুল কাশেম বাদী হয়ে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

হয়েছে। জানাগেছে, পরিচিত পিংকি কল করে জসিমকে বেগমগঞ্জের আমিন বাজারে আসতে বলে। জসিম পিংকির কল পেয়ে সেখানে গেলে মানিক, জাবেদ, বাবুল ও রাহাতসহ কয়েকজন সন্ত্রাসী অস্ত্রের মুখে তাকে অপহরণ করে ছয়ানী ইউনিয়নের জাহানারাবাদ গ্রামে তুলে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে তারা জসিমের পরিবারের কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। জসিমের পরিবারের সদস্যরা মুক্তিপণের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে জসিমকে এলোপাথাড়ী পিটিয়ে আহত করলে সে সঙ্গা হারিয়ে পেলে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় তারা জসিমকে তাকে ওই স্থানে পেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা জসিমকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে

নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় নিহত জসিমের পিতা আবুল কাশেম বাদী হয়ে ৯ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এদিকে কলেজ ছাত্র জসিমের খুনিদের গ্রেফতার করে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। বেগমগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে আমরা হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এ ঘটনায় ৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হয়েছে। আমরা পিংকি নামের এক নারীকে গ্রেফতার করেছি। পিংকি ওই ছাত্রকে মোবাইলে ডেকে এনেছিল। ধারণা করা হচ্ছে, তাদের মধ্যে প্রেমের ছিল। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here