মুন্ডুমালা পৌর নির্বাচনে শরিফ খাঁন সকলের দোয়া চাই

0
14
মুন্ডুমালা পৌর নির্বাচনে শরিফ খাঁন সকলের দোয়া চাই

রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর তানোরের তানোর রাজশাহীর তানোরের মুন্ডুমালা পৌর নির্বাচনে শরিফ খাঁন সকলের দোয়া চাই রাজশাহীর তানোরের মুন্ডুমালা পৌরসভার আগামী নির্বাচনে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যান বিষয়ক সম্পাদক, ত্যাগী ও প্রবীণ নেতা শরিফ খাঁন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ইচ্ছে প্রকাশ করে নির্বাচনের প্রত্তুতি নিচ্ছেন এবং দলমত সবশ্রেণী পেশার মানুষের কাছে তিনি দোয়া প্রার্থনা করে তাকে সহযোগীতার জন্য আহবান জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান হিসেবে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন ও সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডে দীর্ঘদিন ধরে তিনি সম্পৃক্ত রয়েছেন। মুন্ডুমালা পৌরসভার সাধারণ মানুষের মধ্যে শিক্ষিত, প্রবীণ, ত্যাগী, নিবেদিতপ্রাণ ও পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজের কারণে তার একটি আলাদা গ্রহযোগ্যতা রয়েছে।এছাড়াও পৌরসভার মধ্যা না লয় থেকে মেয়র পদে প্রতিদন্দিতার দৌড়ে তিনিই একমাত্র প্রার্থী এবং তাঁর অনুগত কর্মী-বাহিনী যেকোনো মূল্য শরিফ খাঁনকে নিয়ে পৌরসভা নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়ে মাঠে শক্ত অবস্থান গড়ে তোলেছেন। ফলে আগামী মুন্ডুমালা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হলে তার বিজয়ের সম্ভবনা অত্যন্ত উজ্জল বলে সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অভিমত। স্থানীয়রা জানান, পৌরসভার বাসিন্দারা কোনো বহিরাগত নেতৃত্ব বা মেয়র হিসেবে মেনে নিবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছে।

এদিকে বিভিন্ন সময়ে ঘরোয়া ও উঠান বৈঠকে নাগরিকগণের কাছে অঙ্গীকার প্রকাশ করে তিনি বলেন, বিজয়ী হলে তিনি তার সকল যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে পৌরসভার অবহেলিত জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করবেন। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে তিনি রাজনীতি করেন। আর রাজনীতি, দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সেবায় সময় দিতে গিয়ে কিপুল পরিমাণ সম্পত্তি নস্ট ও এখানো তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেননি, তবে এতে তাঁর কোনো দুঃখ নাই তিনি পৌর মেয়র হয়ে সাধারণ মানুষের সেবা করে বাকি জীবন কাটাতে চান তৈরী করতে চান রাজনীতিতে বিরল দৃষ্ট্রান্ত। ফলে তাঁর ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া-পাওয়া নেই, মূত্যুর আগে তিনি পৌরবাসির জন্য একটা কিছু করে যেতে চান। ইতমধ্যে আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড তাকে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী ধরে নিয়েই তিনি আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের তাঁর অনুগত নেতাকর্মীরা নির্বাচনী কৌশল নির্ধারণের প্রতি নিচ্ছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।জানা গেছে, শরিফ খাঁনের জন্ম রাজনৈতিক সচেতন ও সমভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে। পৌরসভা জুড়ে তাঁর পরিবারের ব্যাপক সামাজিক পরিচিতি রয়েছে এবং ছাত্র জীবন থেকেই তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে সম্পৃক্ত। বাংদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবাইদুল কাদের, স্বস্থ্যমন্তী মোহাম্মদ নাসিম ও শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমুসহ জাতীয় পর্যায়ে অনেক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তার রয়েছে গভীর ও নিবিড় সম্পর্ক। একজন শিক্ষিত সৎ,যোগ্য ও ভালো মানুষ হিসেবে তার একটা পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ রয়েছে সর্ব মহলে। আগামী পৌরসভা নির্বাচনে পৌরসভার মধ্যানা লয় থেকে তিনিই একমাত্র প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। ফলে অনেক সুবিধেও রয়েছে তার পক্ষে।
স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অভিমত, এসব বিবেচনায় শরিফ খাঁন প্রার্থী হলে তারই বিজয়ী হবার উজ্জল সম্ভবনা রয়েছে। তাকে একজন শক্ত প্রার্থী বলে বিবেচনা করছে প্রতিপক্ষ রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা। তিনি আগামী মুন্ডুমালা পৌরসভা নির্বাচনে সকলের দোয়া চান। এব্যাপারে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা সাইফুল ইসলাম ওরফে মজিবুর রহমান বলেন, অনেক তো দেখলাম একটি বার শরিফ খাঁনকে প্রার্থী করে দেখা যাক কি হয়, তাছাড়া যে ব্যক্তি শুধুমাত্র রাজনীতিতে সময় দিতে গিয়ে বিপুল পরিমাণ বিষয় সম্পত্তি নস্ট করেছেন এবং এখানো বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারেনি। এমন ত্যাগী ও প্রবীণ নেতা তো দলের মনোনয়ন চাইতেই পারে এটা তাঁর অধিকার আমরা একটি বারের জন্য হলেও তাকে মেয়র পদে দেখতে চাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here