সুনামগঞ্জের কৃষকলীগ নেতার মেয়ে কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পাল বাচঁতে চায়,প্রয়োজন সহযোগীতা

0
10
সুনামগঞ্জের কৃষকলীগ নেতার মেয়ে কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পাল বাচঁতে চায়,প্রয়োজন সহযোগীতা

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া,প্রতিনিধি,(সুনামগঞ্জ) সুনামগঞ্জের কৃষকলীগ নেতার মেয়ে কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পাল (২৫) কঠিন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। ডাক্তার জানিয়েছে তার চিকিৎসার জন্য ১০লক্ষ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু প্রয়োজনীয় অর্থ না থাকার কারণে চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছেনা। তাই ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি। অর্পিতাকে বাচাঁনোর জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে না পেরে তার বাবা পাগল প্রায়। কারণ আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুদের কাছ থেকে ঋন ও ধার নিয়েও এত টাকা মিলানো সম্ভব হচ্ছেনা। তাই কোন উপায় না পেয়ে মানুষের ধারে ধারে ঘুরছেন। খোঁজ নিয়ে জানা যায়- জেলার ছাতক উপজেলা কৃষকলীগের আহবায়ক বাবুল পালের একমাত্র কন্যা কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পাল। সে সিলেট বেতার কেন্দ্রের নিয়মিত কন্ঠশিল্পী ও সিলেট মহিলা কলেজে এমএ অধ্যায়নরত ছাত্রী। গত বছরের ৪ নভেম্বর বাংলাদেশ টেলিভিশনের একটি অনুষ্ঠান করতে ঢাকায় যাওয়ার পর হঠাৎ করে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে অর্পিতা পাল।

পরে তাকে ঢাকা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে চিকিৎসা করা হয়। সেখানে ডাক্তারী পরিক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে জানা যায় কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পালের শরীরে স্বাভাবিক রক্ত তৈরী হতে বাধাগ্রস্থ্য হচ্ছে। স্বাভাবিক ভাবে একজন মানুষের রক্তের মাঝে হিমোগ্লোবিনের পরিমান থাকে শতকরা ১২ভাগ। কিন্তু অর্পিতা পালের শরীরে পাওয়া গেছে মাত্র ৩ভাগ। এঘটনা জানার পর অর্পিতাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কিছুটা সুস্থ্য করা হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ১৫ই ডিসেম্ভর তাকে ভারতের কলকাতায় অবস্থিত টাটা হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে আবারও ডাক্তারী পরিক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসকরা জানায় অর্পিতাকে বাচাঁতে হলে ১০-১৫লক্ষ টাকা লাগবে। একথা জানতে পেরে অর্পিতার বাবা বাবুল পাল খুবই মর্মাহত হয়ে পড়েন। এবং কোন উপায় না পেয়ে অসুস্থ্য মেয়েকে নিয়ে আবার দেশে ফিরে আসেন। বর্তমানে কন্ঠশিল্পী অর্পিতা পাল ঢাকা ক্যান্টালমেন্ট সিরাজ খালেদা মেমোরিয়াল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন বলে জানাগেছে।

এব্যাপারে কৃষকলীগ নেতা বাবুল পাল কাঁদতে কাঁদতে সাংবাদিকদের বলেন- আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে অনেক মামলা-হামলার শিকার হয়েছি। দলের জন্য করেছি অনেক অর্থ নষ্ঠ। কিন্তু এই দুঃসময়ে অর্থের জন্য আমি আমার একমাত্র মেয়ের চিকিৎসা করছে পারছিনা। আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুদের কাছ থেকে অনেক টাকা ঋণ নিয়েছেন। তাই দেশের সকল মহৎ বৃত্তবান ব্যক্তিরাসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা চাই। যদি কারো মনে চায় তাহলে দয়া করে এই মোবাইল (০১৯২২-৭২২৮৪৮) নাম্বারে যোগাযোগ করবেন।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here